মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

ইনোভেশন কর্নার


কর্ম পরিকল্পনা

১. সেবা ভিত্তিক সিটিজেন চার্টার

সেবা ভিত্তিক সিটিজেন চার্টার

২. সিটিজেন চার্টার-কে অধিকতর জনবান্ধব করার জন্য জেলা প্রশাসন চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর উদ্যোগ সমূহ

সিটিজেন চার্টার-কে অধিকতর জনবান্ধব করার জন্য জেলা প্রশাসন চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর উদ্যোগ সমূহ

১ । বর্তমানে প্রচলিত শাখাভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের পরিবর্তে সেবাভিত্তিক সিটিজেন চার্টার প্রবর্তন । এর সুবিধা হলো সেবাগ্রহীতা খুব সহজেই তার কাঙ্খিত সেবাপ্রাপ্তির প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সিটিজেন চার্টার থেকে খুঁজে পাবেন । বর্তমানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ  ব্যতীত অন্য সকল জেলা প্রশাসনে যে শাখাভিত্তিক সিটিজেন চার্টার প্রচলিত রয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনও একসময় এটা অনুসরণ করতো । কিন্তু এর সমস্যা হলো, সেবা এবং এ সংক্রান্ত তথ্যগুলো শাখাওয়ারী সাজানো আছে । ফলে, একজন সেবাগ্রহীতাকে সম্পূর্ণ সিটিজেন চার্টার পড়ে তার প্রয়োজনীয় অংশটুকু খুঁজে বের করতে হয় । উদাহরণস্বরূপ, একজন সেবাগ্রহীতা     চান বন্দুক / শটগান লাইসেন্স, অপর সেবাগ্রহীতা চান এসিড ডিলিং লাইসেন্স; প্রচলিত শাখাভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের ক্ষেত্রে এই উভয় সেবাগ্রহীতাকে জানতে হবে যে, বন্দুকের লাইসেন্সটি দেয়া হয় জুডিশিয়াল মুন্সিখানা শাখা থেকে, এবং এসিড ডিলিং লাইসেন্সটি দেয়া হয় ব্যবসা-বাণিজ্য শাখা থেকে । কোথাও আবার পৃথক ব্যবসা-বাণিজ্য শাখা থাকে না, সেখানে নেজারত শাখা    এ কাজটি করে থাকে । কিন্তু এসকল কিছু একজন সাধারণ নাগরিক, যিনি জেলা প্রশাসনে সেবা নিতে আসবেন, তার জানার কথা নয়, জানার প্রয়োজনও নেই । এক্ষেত্রে নাগরিকের জন্য সহজতম হ’ল এমন একটি সিটিজেন চার্টার, যেখানে জেলা প্রশাসন থেকে প্রদত্ত নাগরিক সেবাগুলোর তালিকা থাকবে, সেই তালিকা থেকে নাগরিক তার নির্দিষ্ট সেবা’র তথ্যটি খুঁজে পাবে । জেলা প্রশাসন,   চাঁপাইনবাবগঞ্জ উদ্ভাবিত সেবাভিত্তিক সিটিজেন চার্টার ঠিক এই কাজটিই করেছে । জেলা তথ্য বাতায়ন (www.chapainawabganj.gov.bd)-এ ‘জেলা প্রশাসন’ ট্যাব এর আওতায় ‘শাখা সমূহ’ মেন্যুতে ‘সিটিজেন চার্টার’ লিঙ্কে  ক্লিক করে এটি দেখা যাবে । এছাড়া এই সেবা ভিত্তিক সিটিজেন চার্টার বিলবোর্ড আকারেও স্থাপন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে । সেবা ভিত্তিক সিটিজেন চার্টারে বর্তমানে প্রচলিত শাখাভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের সেবা সংক্রান্ত কোন তথ্যই বাদ দেয়া হয়নি । শুধু নাগরিক সুবিধা’র বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তা সুবিন্যস্ত করা হয়েছে । জনাব মোহাম্মদ তৌফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা  প্রশাসক (সার্বিক), চাঁপাইনবাবগঞ্জ এ উদ্ভাবনটি করেছেন । উদ্ভাবন বাস্তবায়ন দলে আরো ছিলেন জনাব মোঃ সেলিম রেজা, সহকারী প্রোগ্রামার এবং জনাব জাহিদ সারোয়ার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এর গোপনীয় সহকারী ।

২ । সিটিজেন চার্টারে প্রতিশ্রুত সেবা নিশ্চিত করার জন্য নাগরিকের সেবা আবেদনক সংক্রান্ত পত্রের উপর সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী   সেবা প্রদানের তারিখটি উল্লেখ করা হচ্ছে । একই সাথে পত্রটি নথিতে উপস্থাপনের সময় নোটাংশেও সেই তারিখটি উল্লেখ করা হচ্ছে । সেবাটি প্রদান করার ক্ষেত্রে যাবতীয় প্রক্রিয়া (যেমন, উপজেলা থেকে তদন্ত রিপোর্ট সংগ্রহ) সম্পন্ন করার সময়টি সিটিজেন চার্টারে উল্লিখিত সেবা প্রদানের সময়সীমার আগেই যাতে সম্পন্ন হয়, সেটা নিশ্চিত করতে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে । জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সকল শাখায় সেবাভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের শাখা সম্পর্কিত অংশটুকু শাখার প্রবেশমুখ / জনসাধারণের দৃষ্টিগ্রাহ্য স্থানে স্থাপন করা হয়েছে ।

৩ । সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী সেবা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে সেবার গুণগত মান, নাগরিক অধিকার সুরক্ষা, নাগরিকের সন্তুষ্টি প্রভৃতি বিষয়ে    নাগরিকদের মতামত প্রদানের জন্য সিটিজেন চার্টার মূল্যায়ন ফরম তৈরি করা হয়েছে এবং জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনে   সকল শাখায় ব্যবহারের জন্য তা বিতরণ করা হয়েছে । নাগরিকগণ এ ফরমে তাদের মতামত দিচ্ছেন । এছাড়া ফরমটি জেলা তথ্য বাতায়নে সেবা ভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের সাথে সংযুক্ত আছে, যা সহজেই ডাউনলোড করা যাবে ।

৪ । সিটিজেন চার্টার বাস্তবায়নের সাথে অভিযোগ নিষ্পত্তি ব্যবস্থাপনা নিবিড়ভাবে যুক্ত । তথ্য অধিকার (অভিযোগ দায়ের  ও নিষ্পত্তি   সংক্রান্ত) প্রবিধানমালার প্রবিধান- ৩(১) অনুযায়ী যে ফরম গঠিত হয়েছে, তা জেলা প্রশাসনের জন্য কাস্টমাইজ করে নিয়ে  ব্যবহার করা হচ্ছে সেবাগ্রহীতাদের অভিযোগ দাখিলের জন্য । জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এই ফরম ও তা দাখিলের জন্য স্বচ্ছ  অভিযোগ বাক্স স্থাপন করা হয়েছে । নির্দেশনা অনুযায়ী সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়েও একই পদ্ধতি অনুসৃত হচ্ছে । জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অভিযোগ নিষ্পত্তি কর্মকর্তা হিসাবে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দায়িত্ব পালন করছেন, তিনি এই ফরম ও স্বচ্ছ অভিযোগ বাক্সের তত্ত্বাবধানে আছেন । সপ্তাহের একটি নির্দিষ্ট দিনে গণশুনানী ছাড়াও নাগরিকদের যে কোন অভিযোগ পাওয়ামাত্র নিষ্পত্তির ত্বরিৎ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে । অভিযোগ দাখিলের এই ফরমটিও জেলা ওয়েব পোর্টালে সেবাভিত্তিক সিটিজেন চার্টারের সাথেই সংযুক্ত আছে, যা সহজেই ডাউনলোড করা যাবে ।

৩. বিভাগীয় ইনোভেশন টিমের কর্মপরিকল্পনাসমূহ

রাজশাহী বিভাগীয় ইনোভেশন টিমের ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের উদ্ভাবনী কর্মপরিকল্পনাসমূহ:

 

ক্র: নং

প্রস্তাবিত বিষয়

বাস্তবায়নকাল

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা

প্রত্যাশিত ফলাফল (কাজটি সম্পন্ন হলে পরিমাণগত বা গুনগত কী পরিবর্তন আসবে)

পরিমাপ (প্রত্যাশিত ফলাফল অর্জন হয়েছে কিনা তা পরিমাপের মানদন্ড)

শুরুর তারিখ

সমাপ্তির তারিখ

উদ্ভাবন বিষয়ক  প্রশিক্ষণ

(০২ টি ব্যাচে কমপক্ষে ৬০ জন কর্মকর্তা)

জুলাই’১৭

জুন’১৮

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি)

স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক সেবা প্রদান করা

নতুন পদ্ধতিতে সেবা প্রদান সংক্রান্ত অফিস আদেশ, সনদ ও রশিদ

প্রতি বছর একটি করে বিভাগীয় পর্যায়ে ইনোভেশন সার্কেলের আয়োজন

জুলাই’১৭

জুন’১৮

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি)

বিভাগীয় পর্যায়ে ইনোভেশন সার্কেলের আয়োজন সম্পন্ন করা

বিভাগীয় পর্যায়ে ইনোভেশন সার্কেলের উপর প্রতিবেদন

১। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সকল ইনোভেশন টিমকে সক্রিয়করণ ও প্রতি মাসের সভা নিশ্চিত করণ

২। বিভাগীয় পর্যায়ে কমপক্ষে ৩ টি সভা আয়োজন করা

জুলাই’১৭

জুন’১৮

সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (আইসিটি)

অধীনস্থ সকল ইনোভেশন টিমের নিয়মিত সভা আয়োজন করা

অধীনস্থ সকল ইনোভেশন টিমের নিয়মিত সভার কার্যবিবরণী ও ফলোআপ

এ বিভাগের কর্মকর্তাদের  উদ্ভাবনের স্বীকৃতি প্রদান এবং ইনোভেশন সার্কেলে কমপক্ষে ০৩ জন কর্মকর্তাকে এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা

জুলাই’১৭

জুন’১৮

সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (আইসিটি)

উদ্ভাবনী উদ্যোগের স্বীকৃতি প্রদানের মাধ্যমে কাজে উৎসাহিত করা

স্বীকৃতি প্রদান করার অফিস  আদেশ ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট কাগজ পত্রাদি

প্রতি বছর একটি ইনোভেশন সংক্রান্ত প্রকাশনা প্রস্তুত

জুলাই’১৭

জুন’১৮

সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (আইসিটি)

ইনোভেশন সংক্রান্ত প্রকাশনা তৈরি করা

চুড়ান্ত প্রকাশনা

প্রতিটি জেলায় কমপক্ষে ০১টি করে উদ্ভাবনী পাইলট প্রকল্প গ্রহণ

জুলাই’১৭

জুন’১৮

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি) ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি)

জনদুর্ভোগমুক্ত, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা মূলক সেবা প্রদান নিশ্চিত করা যাবে

নির্ধারিত পাইলট প্রকল্পের সম্পনান্তে নির্দিষ্ট মানদন্ডের সাথে তুলনামূলক পর্যালোচনা

নাগরিক সমস্যা সমাধানের সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার বৃদ্ধি

জুলাই’১৭

জুন’১৮

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি) ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি)

জনদুর্ভোগমুক্ত, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক সেবা প্রদান নিশ্চিত করা যাবে

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আগত অভিযোগ নিষ্পত্তি ও উন্নয়নমূলক কাজের প্রচার

উদ্ভাবনী পাইলট প্রকল্প নিয়মিত পরিদর্শন ও মনিটরিং বৃদ্ধি

জুলাই’১৭

জুন’১৮

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি) ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি)

জনদুর্ভোগমুক্ত, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক সেবা প্রদান নিশ্চিত করা যাবে

নির্ধারিত মানদন্ডের সাথে তুলনামূলক পর্যালোচনা

ই-টেন্ডার চালু

জুলাই’১৭

জুন’১৮

সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (আইসিটি)

প্রযোজ্যক্ষেত্রে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক সেবা প্রদান করা যাবে

কার্যালয়ের টেন্ডার কার্যক্রম শতভাগ ই-টেন্ডারের মাধ্যমে সম্পন্ন করা

১০

অনলাইন রেসপন্স সিস্টেম চালু

জুলাই’১৭

জুন’১৮

সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (আইসিটি)

স্বচ্ছতা ও দ্রুততার সাথে নাগরিক সেবাপ্রদান করা সম্ভব হবে

ই-নথি এবং ই-মেইল, এসএমএস ও ফেসবুক এর মাধ্যম আবেদন ও অভিযোগ নিষ্পন্ন করণ